ট্রাই করুন এই অতি সাধারন টিপসগুলি – আপনার ফোন হয়ে যাবে আরো সুরক্ষিত

আমরা আমাদের ফোনে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সঞ্চিত করে রাখি। যার মধ্যে রয়েছে ব্যাঙ্কিং ডিটেল্স, জরুরী ফোন নম্বর, আধার কার্ড প্যান কার্ডের মত অত্যন্ত সংবেদনশীল ডকুমেন্ট। আর করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে, স্মার্টফোনের ওপর নির্ভরশীলতা মানুষের আরো বহুগুণে বেড়ে গিয়েছে। বর্তমানে আমরা সব থেকে বেশি ব্যাঙ্কিং ট্রানজ্যাকশন করছি স্মার্টফোনের মাধ্যমে। তাই এই পরিস্থিতিতে, আমাদের সর্বদা সচেতন থাকতে হবে যাতে আমাদের তথ্য জালিয়াতির হাতে না পৌঁছে যায়। এর জন্য স্মার্টফোন সুরক্ষিত রাখা সব থেকে আগে দরকার।

আমরা এখানে নিয়ে এসেছি অত্যন্ত সাধারণ ৮টি সিকিউরিটি টিপস যা ব্যবহার করলে আপনার স্মার্টফোনের প্রাইভেসি এবং সিকিউরিটি দুইই অনেকটা বৃদ্ধি পাবে। আসুন জেনে নেওয়া যাক –

১. সর্বদা সফ্টওয়্যার আপডেটেড রাখুন

সফটওয়্যার এর কারণে সবথেকে বেশি সাইবার আজকের ঘটনা সামনে আসে। তাই সফটওয়্যারকে সবসময় আপডেটেড রাখা অত্যন্ত প্রয়োজন। খেয়াল রাখবেন যেন আপনার স্মার্টফোনে সিকিউরিটি প্যাচ লেবেল খুব একটা নীচে না নেমে যায়, তাহলে হ্যাকাররা আপনার স্মার্টফোন সহজে হ্যাক করতে পারবে। যখনই আপনার স্মার্টফোনে কোন আপডেট আসবে, তখনই সেই আপডেট করে নিন। এর ফলে আপনার স্মার্টফোনে ভাইরাস এবং ম্যালফাংশন এর সম্ভাবনা কমে যাবে।

২. স্মার্টফোনে সব সময় শক্তিশালী পাসওয়ার্ড ব্যবহার করবেন –

এই স্মার্ট যুগে সব সময় নিজের স্মার্টফোনে সিকিউরিটি বজায় রাখা অত্যন্ত প্রয়োজন। সেই কারণে আপনাকে অবশ্যই ব্যবহার করতে হবে একটি যথেষ্ট স্ট্রং পাসওয়ার্ড। এই পাসওয়ার্ড যদি অত্যন্ত স্ট্রং থাকে তাহলে আপনার অনুমতি ছাড়া কেউ আপনার স্মার্ট ফোন খুলতে পারবেনা। শুধুমাত্র স্মার্ট ফোনের পাসওয়ার্ড নয়, আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায় অ্যাপ্লিকেশন এবং সমস্ত ব্যাংকিং অ্যাপ্লিকেশনের জন্য আলাদা আলাদা পাসওয়ার্ড ব্যবহার করুন।

৩. ব্লুটুথ যখন ব্যবহার হচ্ছে না তখন সব সময় বন্ধ রাখুন –

অনেক স্মার্টফোন ব্যবহারকারী সবসময় স্মার্টফোনে ব্লুটুথ অন করে রাখেন। কিন্তু, হয়তো সেই সময়ে ব্লুটুথ কোন কাজে লাগছে না কিন্তু তবুও চালু রয়েছে। তবে, আপনারা হয়তো জানেন না, ব্লুটুথ সব সময় চালু থাকলে অন্যরা আপনার স্মার্টফোনের সমস্ত তথ্য অ্যাক্সেস করতে পারবে এবং আপনার কনট্যাক্ট এবং মিডিয়া ফাইলের দুর্ব্যবহার করতে পারে।

৪. কখনো আপনার স্মার্ট ফোন রুট অথবা জেলব্রেক করবেন না –

স্মার্ট ফোন রুট করলে আপনি অন্য ব্র্যান্ডের স্মার্টফোনের এক্সক্লুসিভ অ্যাপ্লিকেশন আপনার স্মার্টফোনে ব্যবহার করতে পারেন। শুধু তাই নয় কাস্টম RAM ইন্সটল করা ইত্যাদি বিভিন্ন ধরনের কাজ আপনি করতে পারেন আপনার স্মার্টফোনে। এছাড়াও বিভিন্ন কাস্টমাইজেশনের অপশন এবং আন অ্যাপ্রুভ অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করার সুযোগ আপনি পেয়ে যান। কিন্তু স্মার্টফোন রুট অথবা জেইলব্রেকিং করার অনেক খারাপ প্রভাব রয়েছে। আপনার স্মার্ট ফোন সহজেই হ্যাকারদের কাছে পৌঁছে যেতে পারে। এবং তারা খুব সহজে আপনার স্মার্ট ফোন হ্যাক করে নেওয়ার সুযোগ পেয়ে যাবে। শুধু তাই নয় আপনি কাস্টমার কেয়ার সাপোর্টও ফোন রুট করার পর পাবেন না। তাই ভুল করেও কখনো স্মার্ট ফোন রুট অথবা জেলব্রেক করতে যাবেন না।

৫. থার্ড পার্টি এপ্লিকেশন যতটা কম সম্ভব ডাউনলোড করুন –

পারলে সব সময়ে বিশ্বস্ত অ্যাপ্লিকেশন স্টোর যেমন গুগল প্লে স্টোর, অ্যামাজন অ্যাপ স্টোর, আইফোনের জন্য অ্যাপল অ্যাপ স্টোর থেকে অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করবেন। এছাড়া যদি কোন থার্ড পার্টি এপ্লিকেশন ডাউনলোড করতে হয় তাহলে এপিকে মিরর, অথবা Aptoid ব্যবহার করবেন। কোন সোর্স না জানা থাকলে যেকোনো অ্যাপ্লিকেশন ফাইল স্মার্টফোনে ইন্সটল করবেন না। অথবা কোন বাজে ওয়েবসাইট থেকে ভুলবশত ইন্সটল হয়ে যাওয়া ফাইল স্মার্টফোনে চালাবেন না। এরকম করলে আপনার সমস্ত ব্যক্তিগত তথ্য সমস্যার মুখে পড়তে পারে।

৬. অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করুন –

আপনারা ল্যাপটপ এবং কম্পিউটারের জন্য যেরকম ভাবে অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করতে পারেন মোবাইলেও সেরকম অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করার রাস্তা রয়েছে। গুগল প্লে স্টোর খুলে আপনারা অনেক অ্যান্টিভাইরাস দেখতে পাবেন। এরমধ্যে KasperSky মোবাইল, AVG অ্যান্টিভাইরাস বেশ ভালো। তবে অ্যান্টিভাইরাস এর মধ্যেও বেশ কিছু এমন অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে যেগুলি মানুষকে বোকা বানানোর জন্য তৈরি। তাই সবসময় রিভিউ দেখে ভালো এন্টিভাইরাস ইন্সটল করবেন স্মার্টফোনে। সম্ভব হলে এমন অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করবেন যাতে ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক বা ভিপিএন সাপোর্টে রয়েছে।

৭. সমস্ত ডেটা এনক্রিপট করুন –

সকলেই এখন তাদের ব্যক্তিগত সমস্ত তথ্য তাদের স্মার্টফোনের স্টোর করে রাখে। তাই এই অত্যন্ত ব্যক্তিগত ডাটা স্টোর করার সঙ্গে সেগুলিকে সুরক্ষিত রাখা অত্যন্ত প্রয়োজন। তাই সব সময় নিজের ডেটা এনক্রিপ্ট করে রাখুন। অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএস দুটি প্ল্যাটফর্ম এর জন্যই ডেটা এনক্রিপ্ট করার অপশন রয়েছে। যদি আপনার স্মার্টফোনে কোন হ্যাকার প্রবেশ করেও যায়, তবে ও তার পক্ষে আপনার স্মার্ট ফোন থেকে গোপনীয় তথ্য খুঁজে বের করা সহজ হবে না যদি আপনি ডেটা এনক্রিপশন ব্যবহার করেন।

৮. প্রয়োজন ছাড়া কোন এপ্লিকেশন ডাউনলোড করবেন না –

যখন আপনার অত্যন্ত প্রয়োজন হবে তবেই কোন এপ্লিকেশন ডাউনলোড করবেন। প্লে স্টোর থেকে হলেও কোন এপ্লিকেশন ডাউনলোড করার আগে তার রিভিউ এবং কমেন্ট সেকশন চেক করে নেবেন। এছাড়া দেখে নেবেন যে সেই অ্যাপ্লিকেশন কোন কোন পারমিশন চাইছে। যদি মনে হয় সেই অ্যাপ্লিকেশন এমন কোন পারমিশন চাইছে যা স্বাভাবিক নয়, তাহলে আপনি অ্যাপ্লিকেশনটি থেকে বিরত থাকুন। অথবা যদি সেই অ্যাপ্লিকেশন এর কোন বিকল্প থেকে থাকে অথবা অনলাইন টুল থাকে তবে তা ব্যবহার করুন।

Hot Topics

মাত্র ১,১৩০ টাকায় ঘরে নিয়ে যান ৪৩ ইঞ্চির ফুল HD স্মার্ট টিভি, পান ৫৪% ডিসকাউন্ট

ই-কমার্স সাইট Amazon এ চলছে Great Republic Sale। এই সেল চলাকালীন অবস্থায় গ্রাহক ফোন এবং বহু ইলেকট্রনিক প্রোডাক্ট এর ওপর পাবেন বৃহৎ ছাড়। তবে...

FAU-G গেমের অ্যানথেম লঞ্চ করল অক্ষয় কুমার, জানালো কবে আসবে গেমটি

লাদাখ সীমান্তে চীনা সৈন্যের ভারতীয় সৈন্যের ওপর অতর্কিত আক্রমণের পর থেকেই ভারতে বারে বারে ব্যান হয়েছে একাধিক চিনা অ্যাপ। তারমধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য ছিল জনপ্রিয়...

২৬ জানুয়ারি লঞ্চ হতে চলেছে FAU-G, জেনে নিন গেমটির ব্যাপারে খুঁটিনাটি

মেড ইন ইন্ডিয়া গেম Fau-G শেষ পর্যন্ত লঞ্চ হতে চলেছে ভারতে আগামী প্রজাতন্ত্র দিবসের দিন। nCore Games এই গেমে ডেভেলপার কোম্পানি এবং তারা Fau-G...

Related Articles

বাম্পার অফার! Realme C11 কে কিনে নিন ৬০০ টাকার ও কম দামে, জানুন অফার

Flipkart এ চলছে নতুন সেল। এই সেলে কম দামে কিনতে পারবেন Realme এর জনপ্রিয় ফোন Realme C11 স্মার্টফোন। এই সেলে গ্রাহক ১৫০০ টাকা ছাড়...

Apple আনতে চলেছে 6G এর সুবিধা, শুরু হয়ে গিয়েছে কাজ

Apple এখন 6G ওয়্যারলেস প্রযুক্তি বিকাশের প্রস্তুতি নিচ্ছে। সংস্থাটি সম্প্রতি আইফোন ১২ হিসাবে প্রথম 5G সাপোর্টে Iphone সিরিজ চালু করেছে। এখন মনে হচ্ছে সংস্থাটি...

বিশেষ অফার! Airtel এর এই প্ল্যানে পান ৩৬৫ দিনের বৈধ্যতা সহ কলিং , ডেটা, SMS, জানুন বিস্তারে

Airtel, Vi এবং Jio এর মত সমস্ত টেলিকম কোম্পানী গুলির করনা স্মৃতি চলাকালীন দীর্ঘকালীন বৈধতা যুক্ত প্ল্যানের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করে। আজ আমরা আপনাকে এমন...